Jun.28

3rd step

সম্পর্কের তিনটা স্তর আছে। প্রথমটি মোহ। বেশির ভাগ মানুষ এক ধরনের মোহ থেকে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। মোহটা এমন হয় যে সে যত দূরেই থাকুক, যত অসাধ্য হোক তবু তাকে চাই। এখান থেকেই তাকে জয় করার একটা ব্যাপার চলে আসে। যে করেই হোক তাকে পেতে হবে।

তার পরের স্টেইজে সে চলে যায় ফ্যান্টাসিতে। এটি দ্বিতীয় স্তর। মোহের বিস্তীর্ণ পরিণতিই ডেকে আনে এই ফ্যান্টাসি। সাদামাটা একটা এসএমএস পড়া হয় একশ বার। তার ব্যাবহার করা টিস্যু সাথে রেখে দেয়া, সে চকলেট খেলে সেই চকলেটের প্যাকেট পকেটে রেখে দেয়ার মত পাগলামী গুলো এই সময়েই ঘটে।

এই সময়টাই সব থেকে সুন্দর সময়। তাকে কিছুটা পাওয়া এবং কিছুটা না পাওয়ার একটা ব্যাপার ঘটতে থাকে।মুশকিল হল, যে মুহূর্তে সে তাকে পেয়ে যাবে সেই মুহূর্ত থেকে তাকে জয় করার আর কিছু থাকে না।

তারপর কী সম্পর্ক ফিকে হয়ে যায়? তাহলে বছরের পর বছর এক ছাদে কী করে থাকে?

হমম থাকে। এই সময় সে ফ্যান্টাসি স্টেইজ থেকে চলে যায় তৃতীয় স্তরে। এটি মায়া। অনেক দিন একটা মানুষের সাথে কথা বললে এক ধরনের মায়া তৈরি হয়। তেলাপিয়া মাছ সে পছন্দ করে না বলে বাজার থেকে শৈল মাছ নিয়ে আসা। শৈল মাছের ঝোল তার খুব পছন্দ। রাতে ফার্মেসীতে গিয়ে এক পাতা ক্লোনাট্রিল কিনে আনা। না খেলে তার ঘুম হয় না।

এই সময় একটা মানুষ আরেকটা মানুষকে অনেক খুটিনাটি ভাবে জানে। বেশি খুঁটিনাটি জানার একটি দিক হল মায়া জন্মে যায় আরেকটি দিক হল মোহ কেটে যায়।
এক যুগ আগের মত ঘুম থেকে উঠে বলা হয় না – ‘ও বউ একটু সাজগুজ করো…চা খেতে খেতে দেখব তোমাকে”

Note
Share this Story:
  • facebook
  • twitter
  • gplus

Leave a Reply

Comment